স্বাধীনতা দিবসের ছবি

স্বাধীনতা দিবসের ছবি

স্বাধীনতা দিবসের ছবি যদি পেতে চান তাহলে একটা বার আমাদের ওয়েবসাইটের এই  স্বাধীনতা দিবসের পিকচার গুলো দেখতে পারেন। আশা করি আমাদের স্বাধীনতা দিবসের ফটো গুলো দেখে আপনাদের মনে হবে যে আপনি যা খুঁজছিলেন তার চেয়েও বেশি কিছু পেয়েছেন। চলুন তাহলে দেখেই নেই shadhinota dibosh picture যে photo গুলো সবার থেকে আলাদা ও জনপ্রিয়।

স্বাধীনতা দিবসের ছবি

স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে আমাদের ওয়েবসাইটে বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা দিয়ে যেভাবে সুন্দর করে ওয়ালপেপার বানানো হয়েছে তা অন্য কোনো ওয়েবসাইটে পাওয়া যাবে না বলেই আমাদের ধারণা।

বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ ২৬শে মার্চ স্বাধীনতা দিবস ঘোষণার মাধ্যমে আনুষ্ঠানিক ভাবে শুরু হলেও বাংলাদেশে মানুষ অনেক আগে থেকেই প্রস্তুতি নিচ্ছিলো বাংলাদেশের পতাকা মান রক্ষা করার জন্য নিজের জীবন দিতে।

১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস ঘোষণা করা হয় ২৬ শে মার্চ আর বাঙ্গালী জাতি ঝাপিয়ে পরে নিজেদের দেশকে রক্ষা করার জন্য যুদ্ধের ময়দানে।

Shadhinota Dibosh আমাদের অধিকার আদায় করার জন্য সংগ্রামী হবার সাহস যোগায়। তাই তো আমরা আমাদের ওয়েবসাইটে স্বাধীনতার ছবি দিয়ে বানিয়েছি অনেক ওয়ালপেপার যে ওয়ালপেপার গুলো আপনারা ব্যবহার করতে পারবেন ফেসবুক স্ট্যাটাস হিসেবে।

বাংলাদেশের পতাকা ছবি আর পতাকার রঙ লাল সবুজ ব্যবহার করে আমরা চেষ্টা করেছি আপনাদের মনের মতো পিকচার বানাতে স্বাধীনতা দিবসের জন্য।

আমরা কতোটুকু পেরেছি সেটা জানি না তবে আমরা আমাদের পক্ষ থেকে সর্বচ্চো চেষ্টা করেছি এটা বলতে পারি। যদি আমাদের ছবি গুলো আপনাদের ভালো লেগে থাকে তাহলে আমাদের কষ্ট সার্থক।

২৬ মার্চ ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের অবস্থা ছিলো খুবই ভয়াবহ। ২৫ শে মার্চ রাতে যখন পাক হানাদার বাহিনী ঝাপিয়ে পরে নিরস্ত্র বাঙালি মানুষের উপর তখন থেকেই শুরু হয় বাংলাদেশের মানুষের অধিকার আদায়ের যুদ্ধ মুক্তিযুদ্ধ।

২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবস ছিলো আমাদের দেশের জন্য রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের সূচনা যে মুক্তিযুদ্ধে আমরা হারিয়েছি আমাদের লক্ষ লক্ষ ভাই ও বোনকে যারা এদেশের জন্য প্রান দিয়ে আমাদেরকে দিয়ে গেছে স্বাধীন বাংলাদেশ।

কিন্তু আমরা মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের কতোটুকু সম্মান দিতে পেরেছি? অনেক সময় দেখা যায় শহীদ পরিবারের সদস্যরা অনেক কষ্টে আছে আবার অনেক সময় দেখা যায় যারা মুক্তিযোদ্ধা ছিলো তারাও তাদের সম্মান সঠিক ভাবে পাচ্ছেন।

তবে এটাও সত্য যে অনেক শহীদ পরিবার আবার অনেক মুক্তিযোদ্ধা এখন ভালো অবস্থানে আছেন তবে যারা এখনো তাদের প্রাপ্য সম্মান পাচ্ছেন না, আমাদের উচিত সে সব মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ পরিবারের দিকে খেয়াল রাখা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *