ছুটির দিনে প্রধানমন্ত্রী

ছুটির দিনে প্রধানমন্ত্রী

ছুটির দিনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার নাতি নাতনিদের সাথে সময় কাটাচ্ছে আর সে সময় তোলা অসাধারন কিছু ছবি দেখতে পাচ্ছেন। আমরা সবাই জানি প্রধানমন্ত্রী মানেই সাথে অনেক নিরাপত্তা কর্মী আর অনেক লোকজন আর সাংবাদিক। এসব কিছুর কোনোটাই এখানে নেই শুধু আছে একজন সাধারন বাঙ্গালী দাদী বা নানী। চলুন জেনে নেই বিস্তারিত।

ছুটির দিনে প্রধানমন্ত্রী

ছুটির দিনে প্রধানমন্ত্রী
ছুটির দিনে প্রধানমন্ত্রী

ছুটির দিনের বিকেল বেলা তোলা মননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আর সাথে আছেন তার নাতি নাতনিরা। গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার নাতি নাতনিদের সাথে সময় কাটাচ্ছেন আবার নানতির চুলের বেণী করে দিচ্ছেন।

এ যেনো অন্য একজন প্রধানমন্ত্রীকে আমরা দেখছি যাকে দেখে বোঝাই যাবে না যে তিনিই বাংলাদেশের মননীয় প্রধানমন্ত্রী। দেখে মনে হবে একজন সাধারন বাঙ্গালী দাদী বা নানী।

সারাদিন ব্যস্ততার কারনে হয়তো নিজেদের দাদী বা নানীকে তেমন একটা কাছে পায় না নাতি নাতনিরা। আর ছুটির দিনে বিকেল বেলা দাদী বা নানীকে কাছে পেয়ে যেনো মহা খুশি নাতি নাতনিরা আর সেই খুশিটা খুব ভালো ভাবেই বোঝা যাচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর নাতি নাতনিদের মুখে।

সবার কাছে তিনি প্রধানমন্ত্রী হলেও নাতি নাতনিদের কাছে তিনি শুধুই একজন দাদী বা নানী আর অন্য সব দাদী বা নানীর মতোই হাসি ঠাট্টা আর সামান্য খেলাধুলা করছেন মননীয় প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী এই বয়সে এতো বেশি হাটাচলা বা নাতি নাতনিদের সাথে তেমন তাল মিলিয়ে খেলাধুলা হয়তো করতে পারবেন না কিন্তু নাতি নাতনিরা হয়তো সেটা সেটা মানতে চাচ্ছে না। তাই হয়তো ছবিতে দেখা যাচ্ছে নানি নাতনিরা হাত ধরে নিয়ে যাচ্ছেন মননীয় প্রধানমন্ত্রীকে।

হয়তো এই ছবি অনেকের মনে রয়ে যাবে অনেক দিন। অসাধারন একজন নারীর সাধারন কিছু মুহূর্ত এটাই মনে করিয়ে দেয় যে আমরা বাঙ্গালী আর আমাদের মনটা ভেতর থেকে খুব সরল। আমরা সাধারন জীবনযাপন খুব পছন্দ করি।

আসলে মননীয় প্রধানমন্ত্রীর এতো সুন্দর কিছু মুহূর্ত যেখানে নেই কোনো নিরাপত্তা কর্মী নেই কোনো মন্ত্রী নেই কোনো সাংবাদিক আছে শুধু সরল মনের কয়েকজন ছোট ছেলে মেয়ে।

আজকের খবর ছিলো আমাদের মননীয় প্রধানমন্ত্রী তার ছুটির দিনে কিভাবে সময় কাটাচ্ছেন নাতি নাতনিদের সাথে সেটা নিয়ে কিছু ছবি। আশা করি আপনাদের ভালো লেগেছে। যদি আরো bangla news সবার আগে পেতে চান তাহলে আমাদের ওয়েবসাইটে প্রতিদিন ভিজিট করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *